Friday, 26 January 2018

বৃদ্ধা ও ব্যাংকারের গল্প

এক বৃদ্ধা ব্যাংকে গেছেন টাকা উঠাতে। কাউন্টারের উপাশ থেকে মহিলা ব্যাংক অফিসার চেক দেখে বললো: এই ভিড়ের মধ্যে মাত্র ৩০০ টাকা উঠানোর জন্য আমাদের এতক্ষন সময় নষ্ট করবেন?! আপনি তো এই টাকা বুথ থেকেও উঠাতে পারতেন। বৃদ্ধা বললেন, আমি তো বুথ ব্যবহার করতে পারি না তাই এখানে আসছি। আপনার সময় নষ্ট করার জন্য দুঃখিত, তবে টাকাটা আমার দরকার। ব্যাংকার এরপরও বিরক্ত দেখালো। বৃদ্ধা তখন বললেন, ৩০০ টাকা দিতে যদি এত সমস্যা হয় তাহলে আপ্নাদের ব্যাংকে আমার যত টাকা আছে সব দিয়ে দেন। বৃদ্ধার একাউন্ট চেক করে দেখা গেলো ২ কোটি নম্বই লাখ টাকা আছে। বৃদ্ধা চেক লিখে দিয়ে বললো আমার সব টাকা দিয়ে দেন।
কিন্তু ব্যাংকার ক্যাশ চেক করে দেখলো ব্যংকে এই মুহুর্তে ক্যাশ আছে মাত্র ৩০ লাখ টাকা। ব্যাংকার ঘাবরিয়ে গেলো। বৃদ্ধার পিছনের সিরিয়ালের সবাইকে অন্য কাউন্টারে যেতে অনুরুধ করলো। এতক্ষনে ব্যাংকের ম্যানেজার চলে আসলো। ঘটনা শুনে ক্ষমা চাইলো। এমন ভুল আর হবে না বলে মাফ করে দিতে বললো। কিন্তু বৃদ্ধা সিদ্ধান্ত থেকে নরবে না। তার সব টাকা চাই।
ম্যানেজার সহ সবার অনুরোধ শুনে বৃদ্ধা বললো, ঠিকাছে তোমাদের ব্যাংকে যতটাকা আছে আমাকে এখন তাই দাও। বৃদ্ধা তাড়াতাড়ি ৩০ লক্ষ টাকার নতুন চেক লিখে দিলো। মহিলা ব্যাংকার তাড়াতাড়ি ৩০ লক্ষ টাকা বৃদ্ধার হাতে তুলে দিয়ে ক্ষমা চাইলেন।
সবার ক্ষমা প্রার্থনা দেখে বৃদ্ধার মায়া হলো। বললেন, যাও মাফ করে দিলাম। এবং ৩০ লক্ষ টাকা থেকে ৩০০ টাকা রেখে বললেন, নাও এটা জমা রেখে দাও। মহিলা ব্যাংকার, ম্যানেজার ও বাকি লোকজন হা 😳 হয়ে তাকিয়ে রইলো।
মোরাল:
১) কারো চেহাড়া দেখে ছোট মনে করার কারণ নেই।
২) নিজ দায়িত্বে চুল পরিমান অবহেলা করতে নেই।

No comments:

Post a Comment